29 C
Dhaka
Sunday, June 16, 2024

পাবজি খেলতে নেপাল গেল বাংলাদেশি যুবকরা, পুরস্কার ২ কোটি টাকা

বিশ্বের অন্যতম বিখ্যাত অনলাইন মোবাইল গেম পাবজি। প্রতিদিনই প্রায় তিন কোটি ব্যবহারকারী গেমটি খেলে থাকে। জনপ্রিয় এই গেমটি নিয়ে প্রতিবছরই বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ই-স্পোর্টস টুর্নামেন্টের আয়োজন করে থাকে মোবাইলটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। এবার সেই ধারাবাহিকতায় নেপালে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পাবজি মোবাইল সুপার লিগ (পিএমএসএল) স্প্রিং ২০২৪।

বড় এই ই-স্পোর্টস ইভেন্টে এবার অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশের ‘এ ওয়ান ই-স্পোর্টস’। আগামী ২২মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত নেপালে এ খেলা অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ ছাড়াও নেপাল, পাকিস্তান, মঙ্গোলিয়া, উজবেকিস্তান, তাজিকিস্তান, কাজাকিস্তান ও রাশিয়ার ই-স্পোর্টস টিম এতে অংশগ্রহণ করবে।

আরো পড়ুন  বিশ্বকাপ খেলতে দেশ ছাড়ল বাংলাদেশ দল

বাংলাদেশ থেকে ‘এ ওয়ান ই-স্পোর্টস’ ছাড়াও আরেকটি দল এখানে অংশগ্রহণ করবে। পাবজি মোবাইল সুপার লিগের সেন্ট্রাল ও সাউথ এশিয়ার দলগুলোকে নিয়ে হওয়া এই টুর্নামেন্টের সর্বমোট প্রাইজপুল বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২ কোটি ৩২ লাখ টাকা।

নেপালে হওয়া এই আসরের সেরা ৪ টি দল আবার সরাসরি সৌদি আরবে অনুষ্ঠিত পাবজি ওয়ার্ল্ড কাপে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পাবে। এ বছর জুলাই মাসে প্রথমবারের মতো ‘পাবজি ওয়ার্ল্ড কাপ’ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সৌদি আরবে। যার সর্বমোট প্রাইজমানি থাকছে প্রায় ৩৫ কোটি টাকা।

আরো পড়ুন  চার ম্যাচে আট উইকেট নিয়েও বিশ্বকাপ দল থেকে বাদ সাইফউদ্দিন

বাংলাদেশে ই-স্পোর্টসে অনেক প্রতিবন্ধকতা থাকলেও এদেশের ইস্পোর্টস খেলোয়াড়রা এগিয়ে যাচ্ছে। যথাযথ সহযোগিতা পেলে বাংলাদেশেও ই-স্পোর্টস ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তোলা সম্ভব। উল্লেখ্য ২০২১ সালে এ ওয়ান ইস্পোর্টস বাংলাদেশের প্রথম দল হিসেবে প্রথমবারের মতো পাবজি মোবাইলের গ্লোবাল চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণ করেছিল দুবাইতে।

গেমিং ও ইস্পোর্টস ইন্ডাস্ট্রি বর্তমানে সিনেমা বা সংগীত ইন্ডাস্ট্রির চেয়েও অনেক বড়। নতুন জামানার এই ইন্ডাস্ট্রিকে ইতিবাচকভাবে ভাবার সময় এসেছে। বিশ্বের সব দেশই ই-স্পোর্টস নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। এশিয়ার অন্য দেশগুলো ই-স্পোর্টসকে সরকারিভাবে স্বীকৃতি দিচ্ছে। এমনকি মালয়েশিয়ার মতো দেশে ই-স্পোর্টসকে জাতীয় বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

আরো পড়ুন  ‘লজ্জায় সাকিবের অবসর নেয়া উচিত’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সাম্প্রতিক সময়ে তার দেশের গেমার ও ই-স্পোর্টস অ্যাথলেটদের সঙ্গে এ শিল্পটিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে বৈঠক করেছেন। সুতরাং বাংলাদেশেরও উচিত সম্ভাবনাময় ইন্ডাস্ট্রিকে নিয়ে যতাযত নীতিমালার মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া।

সর্বশেষ সংবাদ