36 C
Dhaka
Thursday, July 18, 2024

‘বাথরুমে যাচ্ছি, ধৈর্য ধরুন’, বার্তাটি লিখল কে?

ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য সামনে লম্বা লাইন। কিন্তু ‘প্রকৃতির ডাক’ উপেক্ষা করার আর উপায় ছিল না। গোটা স্টেশনের টিকিট কাউন্টারের দায়িত্ব একা হাতে সামলাচ্ছিলেন এক রেলকর্মী। উপায়ান্তর না দেখে তিনি যা করেছেন, তা রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গেছে।

সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এক ছবিতে দেখা গেছে, পিচবোর্ডে মার্কার দিয়ে ওই রেলকর্মী লিখে দিয়ে গেছেন, ‘বাথরুমে যাচ্ছি। আর কোনও লোক নেই। ধৈর্য ধরে দাঁড়ান। এসে টিকিট দিচ্ছি।’

আরো পড়ুন  মিলছে না বুথফেরত সমীক্ষার ফল, ভালো করতে পারে কংগ্রেস

কিন্তু টিকিটের লাইন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছিল। ফলে দানা বাধে অসন্তোষ, শুরু হয় যাত্রীবিক্ষোভ।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের শিয়ালদহ মেন শাখার চাকদহ টিকিট কাউন্টারে।

ওই রেলকর্মীর ‘অসহায়তা’ নিয়ে যাত্রীদের সহানুভূতি থাকলেও রেল দফতরের প্রতি ক্ষুব্ধ টিকিটের জন্য দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকশ’ যাত্রী। রেল দফতরের শূন্যপদ নিয়ে আলোচনার মাঝেই রেলকর্মীর ওই আবেদনমূলক বার্তা সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

আরো পড়ুন  দুবাইয়ে ৩৯৪ বাংলাদেশির গোপন সম্পদের মূল্য ২ হাজার ৬৩৬ কোটি

পূর্ব রেল সূত্রে খবর, গত সোমবার দুপুরে শিয়ালদহ মেন শাখার চাকদহ টিকিট কাউন্টার কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ করে দিয়ে বাথরুমে যান রেলকর্মী। টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়ানো যাত্রীদের উদ্দেশে একটি বার্তা লিখে সাঁটিয়ে দিয়ে যান কাউন্টারের সামনে।

কিন্তু অপেক্ষারত যাত্রীদের প্রশ্ন, ‘কেন রেল দফতরে বিকল্প কর্মী নেই?’ এই অভিযোগ তুলে শুরু হয় বিক্ষোভ। অনেকেই ওই পিচবোর্ডে লেখার ছবি তুলে ছড়িয়ে দেন।

আরো পড়ুন  ইসরাইলি আগ্রাসন সামাজিক মাধ্যমে হঠাৎ কেন ট্রেন্ডিংয়ে ‘অল আইজ অন রাফাহ’?

যা ঘটেছে তা অনভিপ্রেত উল্লেখ করে পূর্ব রেলের কর্মী সংগঠন মেনস ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক অমিত ঘোষ বলেছেন,
কর্মীরা এই জায়গায় অসহায়। নতুন নিয়োগ হচ্ছে না রেলে। কর্মী না থাকায় পরিচালনা হচ্ছে না ঠিকভাবে।

তার অভিযোগ, ‘রেল কর্মী নিয়োগে সম্পূর্ণ উদাসীন। তার ফলে এই সমস‌্যা তৈরি হয়েছে।’

সর্বশেষ সংবাদ