29 C
Dhaka
Thursday, July 25, 2024

সাকলায়েনের সঙ্গে কী সম্পর্ক ছিল, প্রশ্নের জবাবে যা বললেন পরীমণি

আলোচিত অভিনেত্রী পরীমণির সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের কারণে চাকরি হারাতে বসেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোলাম সাকলায়েন। অভিনেত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্টে (পিওএম) বদলি করা হয় তাকে। তবে ঢালিউড তারকার সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর আগে গোয়েন্দা-গুলশান বিভাগের এডিসির দায়িত্ব পালন করেছেন গোলাম সাকলায়েন।

পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্টে (পিওএম) বদলি করার পর ঝিনাইদহ ইনসার্ভিস ট্রেনিং সেন্টারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে বদলি করা হয় গোলাম সাকলায়েনকে। আর এবার এ ঘটনায় বিভাগীয় মামলায় তাকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

গত ১৩ জুন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শৃঙ্খলা-২ শাখা থেকে উপসচিব স্বাক্ষরিত এক প্রতিবেদনে তাকে বাধ্যতামূলক অবসর প্রদান করার জন্য আবেদন করা হয়। আর বিষয়টি মঙ্গলবার (২৫ জুন) প্রকাশ্যে আসার পর অভিনেত্রীর সঙ্গে গোলাম সাকলায়েনের অবৈধ সম্পর্ক নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াসহ বিভিন্ন মাধ্যমে নতুন করে শুরু হয় নানা আলোচনা-সমালোচনা ও চর্চা।

আরো পড়ুন  সাকলায়েনের জানা ছিল না, আমি চুপ থাকার জন্য জন্মিনি: পিয়া জান্নাতুল

এদিন দেশের একটি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে গোলাম সাকলায়েনের চাকরি চলে যাওয়ার ব্যাপারে অবশ্য খোলামেলা কথা বলেছেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। এ সময় গোলাম সাকলায়েনের সঙ্গে সম্পর্কটা আসলে কী ছিল―এ প্রশ্নের জবাবে অভিনেত্রী বলেন, এই সম্পর্কটা কী, তা নিয়ে আগে কখনো কেউ কিছু জানতে চায়নি। কিন্তু তার আগেই এত অপবাদ, এত কিছু…।

পরীমণি বলেন, যেখানে সম্পর্কটা ডিফাইন করার আগে এত এত অপবাদ নিয়ে ফেলছি, সেখানে এই সম্পর্ক নিয়ে জনগণ তো আমার কথা বলার জায়গাও রাখেনি। মনে হয় না এ নিয়ে কথা বলার আর কোনো প্রয়োজন আছে, যা নিয়ে এগোনো যাবে। যে রকম আছে না, কোনো একটা প্যাঁচ লেগেছে, সেই প্যাঁচটা খুলি। তবে এখানে প্যাঁচ লাগারও কিছু নেই, আবার প্যাঁচ খোলার মতোও কিছু নেই। এ ব্যাপারে অযথাই কথা বলব কেন? আমার কাছে শুধু মনে হয়, সাকলায়েন ব্যক্তিগত আক্রোশের মধ্যে পড়েছে।

আরো পড়ুন  ‘বিয়ে করেছি, বিবাহবহির্ভূত কোনো সম্পর্কে তো লিপ্ত হইনি’

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের ১৩ জুন বোট ক্লাবের ঘটনার পর পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টা ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ তোলা হলে এ ব্যাপারে মামলা হয়। মামলার পরদিনই অভিযুক্ত ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদকে রাজধানীর উত্তরার একটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই সময় তার সঙ্গে আরও কয়েকজন সহযোগীকেও গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলায় সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে অভিনেত্রী পরীমণিকে গোয়েন্দা কার্যালয়ে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আর ওই সময়ই ডিবির গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) গোলাম সাকলায়েনের সঙ্গে পরিচয় হয় অভিনেত্রীর। এরপর নিয়মিত যোগাযোগ হতো দু’জনের। এমনকি পরীমণির বাসায় যাওয়া-আসাও শুরু করেন গোলাম সাকলায়েন। মাঝে মাঝে দু’জন গাড়ি নিয়ে ঘুরতেও বের হতেন।

আরো পড়ুন  সালমান শাহকে হারানোর ২৫ বছর আজ

সূত্রের তথ্য বলছে, সবশেষ পরীমণি ডিবির কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েনের রাজারবাগের মধুমতি ভবনের বাসায় যান। সেখানে প্রায় ১৮ ঘণ্টা অবস্থান করেন তারা। আর ২০২১ সালের ৪ আগস্ট রাতে গ্রেপ্তারের পর অকপটে সবকিছু স্বীকার করেন পরীমণি।

সর্বশেষ সংবাদ